মৌমাছি সংরক্ষণে মৌমাছি-বান্ধব বাগান তৈরি

মৌমাছি একটি গুরুত্বপূর্ণ পরাগবাহী পতঙ্গ, এটি প্রাকৃতিক মধু পাওয়ার একমাত্র উৎস। মৌমাছির মত এই ক্ষুদ্র পতঙ্গটি সারা বিশ্বের কৃষি ও খাদ্য উৎপাদনের বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে। মৌমাছির জনসংখ্যা হ্রাস সারাবিশ্বের জন্যেই খুব হতাশাব্যাঞ্জক ব্যাপার। মৌমাছি ছাড়া খাদ্য ও উদ্ভিদের বিকাশ কল্পনা করা অসম্ভব!

মৌমাছিরা পরিবেশকে কীভাবে সহায়তা করে

আমরা প্রায় সকলেই জানি আমাদের মৌমাছি আমাদের কিভবে উপকার করে। কয়েকটি পরিসংখ্যান নিয়ে কথা বলি…

মৌমাছি গুরুত্বপূর্ণ কারণ তারা ফুল এবং ফসলকে পরাগায়িত করে। আমরা প্রতিদিন যে ফলমূল এবং শাকসব্জি খাই তার অনেকগুলিই উত্পাদন করতে এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।

আপনি কি জানেন, আমাদের কাদ্য ফসলের ঠিক কত ভাগ উদ্ভিদ মৌমাছি দ্বারা পরাগায়িত হয়?

একটি গবেষণা অনুসারে, আমাদের খাদ্য উত্পাদনের এক-তৃতীয়াংশ পরাগায়নের উপর নির্ভর করে! মৌমাছি এই বাস্ততন্ত্রে বেশ কার্যকরি ভূমিকা পালন করে।

এছাড়াও, তারা যে মধু উৎপাদন করে – সেটিও  একটি গুরুত্বপূর্ণ ভেষজ।

মৌমাছিরা কীভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে?

মৌমাছির জনসংখ্যা হ্রাসে দুটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হল বাগান বা চাষের জমিতে কীটনাশকের ব্যবহার এবং আবাসস্থল হ্রাস হওয়া।

মৌমাছি খাবারের জন্য ফুলের উপর পুরোপুরি নির্ভর করে এবং ফুলবতী গাছপালা তাদের খাদ্যের অন্যতম প্রধান উৎস।

নগরায়নের ফলে মৌমাছির প্রাকৃতিক আবাসের বেশিরভাগই হ্রাস পাচ্ছে।

এছাড়াও জনসংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে অল্প জমিতে বেশি খাদ্য উত্পাদনের চ্যালেঞ্জ তৈরি হয়েছে। বেশি বেশি কৃষি জমি বারার ফলে মৌমাছির জন্য প্রাকৃতিক আবাসস্থলও কমে যাচ্ছে … এবং বিষাক্ত কীটনাশক ব্যবহার আধুনিক কৃষিতে এখন অহরহ ঘটছে।

আমরা কীভাবে মৌমাছিদের বাঁচাতে সহায়তা করতে পারি?

কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ আছে, যা প্রত্যেকে মৌমাছিকে সংরক্ষণ করতে ভূমিকা রাখতে পারে।

কীটনাশক এড়িয়ে চলুন

মৌমাছিরা ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার সবচেয়ে বড় কারণ কীটনাশক, তাই আপনার বাগানে কোনও কীটনাশক ব্যবহার না করাই উত্তম। এমনকি জৈব কীটনাশকও মৌমাছি মারতে পারে, তাই কোনও ধরণের কীটনাশকের নিয়মিত প্রয়োগ কখনই করবেন না।

যদি কীটপতঙ্গ সমস্যা মোকাবেলার জন্য অবশ্যই কিছু ব্যবহার করতে হয় তবে নিশ্চিত হন কোন কীটপতঙ্গটির বিরুদ্ধে লড়াই করছেন। তারপরে একটি জৈব কীটনাশক ব্যবহার করুন যার কোন ক্ষতিকর প্রভাব নেই এবং কেবলমাত্র পোকামাকড়কে লক্ষ্য করেই এটি স্প্রে করুন। অনেক ক্ষেত্রে, পোকামাকড় থেকে মুক্তি পাওয়ার সবচেয়ে ভাল সমাধান হল হাত দিয়ে কীটপতঙ্গ নির্মূল করা। কীটনাশক ব্য্যবহারের দরকার নেই।

নিজেই নিজের খাবার উৎপাদন করুন

আপনি আপনার নিজের বাগানে যত বেশি খাদ্য পরিবারের চাহিদা মাফিক সবজি-ফল চাষ করবেন, ততই আপনি কৃষিকাজ এবং বাণিজ্যিক খাদ্য উৎপাদনের উপর কম নির্ভর করবেন। এছাড়াও, নিজের খাদ্য বাড়ানো আপনার এবং আপনার পরিবারের পক্ষে অনেক স্বাস্থ্যকর ও ঝুঁকিহীন!

বাগানে মৌমাছি বান্ধব উদ্ভিদ চাষ করুন

যখন আপনি নার্সারি থেকে গাছ কিনছেন, মৌমাছিদের আকর্ষণ করে এমন ফুল গাছের সন্ধান করুন। তারপরে এগুলিকে আপনার ছাদ বাগান বা বারান্দায় অন্তর্ভুক্ত করুন বা আপনার বাগানের চারপাশে এমন একটি সীমানা তৈরি করতে ব্যবহার করুন যাতে মৌমাছিরা ঘুরে বেড়াবে।

কীভাবে মৌমাছি বান্ধব বাগান তৈরি করবেন

মৌমাছি বান্ধব বাগান তৈরি করার সময় প্রথমে ভাবতে হবে কোন গাছটি আপনি রোপণ করবেন। ফুল গাছ এখানে আবশ্যক, তবে মৌমাছি সব ধরণের ফুলের প্রতি আকৃষ্ট হয় না।

সুতরাং, সঠিক ধরণের ফুল রোপণ করা গুরুত্বপূর্ণ। যেগুলি তাদের কাছে ম্যাগনেটের মতো মৌমাছিকে আকর্ষণ করবে।

Bee on flower

ফুলে মধু আহরণে ব্যস্ত মৌমাছি

আপনার বাগানে মৌমাছিদের আকর্ষণ করার একটি নিশ্চিত উপায় হল স্থানীয় ফুল গাছগুলোকে তালিকায় রাখুন।র

স্থানীয় নার্সারি এই ব্যাপারটিকে অত্যন্ত সহজ করে তোলে এবং তাদের কাছেই যেকোনোরকম দেশীয় চারা পাবেন।

আপনি যদি শাকসব্জি বাগান করে করেন এবং ফুলের বাগান তৈরি করতে আগ্রহী না হন। তবুও কিছু মৌমাছি বান্ধব ফুল লাগিয়ে রাখতে পারেন।।

ফুলগুলি আপনার বাগানে মধু মৌমাছির মতো পরাগকে এবং অন্যান্য উপকারী পোকামাকড়কে আকর্ষণ করে। আপনি আপনার উদ্ভিজ্জ বাগানের প্রতি যত ভাল পতঙ্গকে আকর্ষণ করবেন, তত বেশি খাদ্য খাদ্য উৎপাদন নিশ্চিত হবে।

মৌমাছি বান্ধব ফুলের তালিকা

১) গাঁদা

২) বেলি

৩) ডালিয়া

৪) নয়নতারা

৫) জিনিয়া

৬) পুদিনা

৭) সূর্যমুখী

৮) আম

৯) লিচু

১০) পেয়ারা

১১) ডালিম

১২) লেবু

১৩) কাজুবাদাম

মৌমাছিদের আবাসস্থল ধ্বংস করে ফেলছি আমরা। এখন ওদের আমাদের সহায়তা প্রয়োজন এবং প্রকৃতিকে ভালবেসে আমরা তাদের সংরক্ষণে একটি বিশাল প্রভাব ফেলতে পারি! আপনার বাগানে মৌমাছিবান্ধব উদ্ভিদ যুক্ত করার মাধ্যমে আপনি মৌমাছিদের নিরাপদ আবাসের ব্যবস্থা করতে পারেন।

আপনার বন্ধুবান্ধব এবং প্রতিবেশীদেরকে কেন মৌমাছি সংরক্ষণ করা প্রয়োজন এবং আমরা প্রত্যেকে কীভাবে ছোট ছোট পরিবর্তন আনতে পারে যা শেষ পর্যন্ত একটি বিরাট পার্থক্য তৈরি করবে সে সম্পর্কে জানান।

Ahmed Imran Halimi
Follow Me

Leave a Reply