করোনায় ভাল থাকতে চা

টেলিভিশন, সংবাদপত্র কিংবা সোশ্যাল মিডিয়া সবদিকেই এখন একটাই শব্দ – ‘করোনাভাইরাস’। সামাজিক দুরত্ব পালনের পাশাপাশি এই ভাইরাস মোকাবিলার অন্যতম উপায় হলো নিজের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা। প্রতিদিন এক কাপ ভেষজ চা (যেমনঃ তুলসি চা, পুদিনা চা, তেঁতুল চা ইত্যাদি) করোনায় ভালো থাকতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে। চা এর স্নিগ্ধতাদায়ক গন্ধ আমরা সকলেই উপভোগ করতে ভালোবাসি।

বর্তমানে চা হচ্ছে এমন এক পানীয় যা বিশ্বে পানির পর সর্বাধিক পান করা হয়। আসুন জেনে নেই ভেষজ চা এর কিছু উপকারিতা সম্পর্কে যা করোনায় ভালো থাকতে আপনাকে সাহায্য করবে।

★তুলসি চা

তুলসি তার ঔষধি গুণের জন্য আমাদের সকলের নিকটে অতিপরিচিত একটি গাছ। তুলসি পাতা চা-তে যোগ করে আলাদা এক ঘ্রাণ এবং তার নিজস্ব ঔষধি গুণ-ও। তুলসি চা আমাদের শ্বসনতন্ত্রের বিভিন্ন রোগ যেমন : কফ, ফ্লু, সাইনোসাইটিস ইত্যাদি উপশমে সাহায্য করে। তাছাড়া তুলসি পাতার নির্যাস অনেক ধরণের চর্মরোগ উপশমে কার্যকরী। ব্লাড প্রেসার কমায়, স্ট্রোকের ঝুকি কমায় এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে – যা করোনার এই সময়ে ভালো থাকতে ভীষণ দরকারি।

The Health Benefits of Coffee vs Tea

From Visually.

★পুদিনা চা

প্রাচীনকাল থেকেই ঔষধি হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে পুদিনা। পুদিনা পাতা চা-তে আলাদা মিন্ট ফ্লেভার যোগ করে যা পানের সময় গলায় কিছুটা ঠান্ডা ঠান্ডা অনুভূত হয়। নিশ্বাসে আনে সজীবতা। পুদিনা চা কাশি উপশমের পাশাপাশি হজম শক্তি বৃদ্ধিতে বেশ কার্যকরি।যাদের হজমে সমস্যা বা গ্যাস এর সমস্যা তারা নিয়মিত পুদিনা চা পান করতে পারেন। এক্ষেত্রে পুদিনা চা অনেক উপকারী। তাছাড়া আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি তো করেই।

Hibiscus Tea VS Roselle Tea (infographic)

From Visually.

★তেঁতুল চা

টক প্রেমিদের জন্য তেঁতুল চা যেন একটা আবদার। তেঁতুল চা-ও যে ভেষজ গুণ সম্পন্ন তা হয়ত আমরা অনেকেই জানি না। তেঁতুল চা-এ রয়েছে এন্টি-অক্সিডেন্ট,এন্টি-ইনফ্লেমেটরি (প্রদাহ বিরোধী উপাদান)। যা আমাদের সতেজ রাখার পাশাপাশি শরীরের প্রদাহের বিরুদ্ধেও কাজ করে। বিশেষজ্ঞদের মতে এটি হৃদপিণ্ডে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে। এটি ডায়াবেটিস রোগিদের জন্যও বেশ উপকারী পানীয়।

Just Some Reasons to Drink Green Tea

From Visually.

★জবা চা

পাত্তি দেওয়া চায়ের রজ্যে জবা চা এক নতুন সংযোজন। এই চা বানানো বেশ সহজ। জবার পাপড়ি সংগ্রহ করে ভাল করে ধুয়ে নিতে হবে। এরপর গরম পানিতে সিদ্ধ করতে হবে। যে পর্যন্ত জবার রঙ বেরোবে না, সে পর্যন্ত সিদ্ধ করেই যেতে হবে। এরপর আপনার পছন্দ মত গরম মশলা বা চিনি মিশিয়ে পরিবেশন করবেন। এই চায়ে বেশ কিছু দারুণ উপকারিতা পাবেন। জবা চা এন্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ, যা আপনাকে রোগ-প্রতিরোধে সহায়তা করবে। গবেষণায় দেখা গেছে জবা চা সিস্টলিক ও ডায়স্টলিক উভয় চাপকেই হ্রাস করে। করোনায় ঘরে বসে অনেকেরই শরীরে অতিরিক্ত ফ্যাট জমে একাকার! জবা চা আপনার শরীরে ভাল HDL কোলেস্টেরল বাড়াতে সাহায্য করে। জবা চা লিভারে চর্বি জমতে বাধা দেয়, যার ফলে আপনাকে দুর্বল হতে দেয় না। জবা চা-এ পলিফেনলের আধিক্য বেশি হওয়ায় এটি ক্যান্সার প্রতিরোধেও সাহায্য করে।

জানুনঃ ওজন কমানোর আদ্যোপান্ত

What

From Visually.

★গ্রিন টি

স্বাস্থ্য-সচেতন মানুষদের কাছে গ্রিন টি প্রথম পছন্দ। জবা চায়ের মতোই এতেও প্রচুর পরিমাণে পলিফেনল থাকে, যা একটি প্রাকৃতিক যৌগ। এটি প্রদাহ হ্রাস এবং ক্যান্সারের সাথে লড়াই করতে সহায়তা করে। গ্রি টি-তে সামান্য ক্যাফিন থাকে। এটি একটি উত্তেজক পদার্থ। গ্রিন টি নিয়মিত পানে মস্তিষ্কের কার্যকারীতা বৃদ্ধি পায়। গ্রিন টি ফ্যাট বার্ণ করে বিপাকের হার আশ্চর্যভাবে বাড়িয়ে তুলতে পারে। গ্রিন টি ডিমনেশিয়ার মত মস্তিষ্কের রোগের ঝুঁকি কমায়। গ্রিন টি নিয়মিত গ্রহণ করার ক্ষেত্রে একটি ভাল মানের ব্র্যান্ড বেছে নেওয়ার চেষ্টা করা উচিত, কেননা নিম্ন মানের কিছু ব্র্যান্ডে অতিরিক্ত পরিমাণে ফ্লোরাইড থাকতে পারে।

চা যেন এখন আমাদের সকলের কাছেই এক আবেগের নাম। সকাল হোক কিংবা বিকাল, গল্প হোক কিংবা উপন্যাস, বৃষ্টিতে এক কাপ চা কিংবা ছবি তুলতে এক কাপ চা, ঘুম থেকে উঠে এক কাপ চা কিংবা রাত জাগতে এক কাপ চা, চা আমাদের চাই-ই চাই। তবে হোক না সেটা ভেষজ চা? ভেষজ চা, চা এর গুণাগুণ কে বহুমাত্রায় বৃদ্ধি করে এবং যোগ হয় ঔষধি গুণ। আসুন, নিয়মিত ভেষজ চা পান করি এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এই করোনার সময়ও সুস্থ থাকি।

Alauddin Ahmed
Follow Me

Leave a Reply